ইস্টার

ইস্টার (প্রাচীন ইংরেজি: Ēostre‎; গ্রিক: Πάσχα, Paskha; আরামীয়: פֶּסחאPasḥa; from হিব্রু ভাষায়: פֶּסַחPesaḥ)[১] হল একটি খ্রিস্টান ধর্মীয় উৎসব এবং ছুটির দিন। নূতন নিয়মের বর্ণনা অনুযায়ী যিশুকে ক্রুশবিদ্ধ করে হত্যা করার পরে, তৃতীয় দিন তিনি ক্যালভারীতে পুনরুত্থান করেন।[২][৩] ইস্টার চল্লিশ দিন ব্যাপী উপবাস, প্রার্থনা এবং অনুশোচনার মাধ্যমে পালন করা হয়। চল্লিশ দিন ব্যাপী উপবাসের শেষ সপ্তাহকে পুণ্য সপ্তাহ বলা হয়। এটা ইস্টার ট্রিডুমের দিন, মন্ডি থার্সডেসহ, মন্ডি সূত্রপাত এবং শেষ ভোজ[৪][৫], যা অতি পরিচিত গুড ফ্রাইডে হিসেবে এবং যিশুর ক্রুশবিদ্ধকরণ ও মৃত্যুর সূত্রপাত সমন্বয়ে গঠিত।[৬]

ইস্টার
Victory over the Grave
যিশুর পুনরুত্থানের চিত্রণ
বের্নহার্ট প্লোকোরস্টের, ১৯ শতকে অঙ্কিত
ধরনখ্রিস্টান, সাংস্কৃতিক
তাৎপর্যযিশুর পুনরুত্থান উদযাপন
উদযাপনChurch services , festive family meals, Easter egg hunts and gift-giving
পালনপ্রার্থনা, রাত্রিকালীন জাগরণ, সূর্যোদয় সেবা
তারিখচলরাশি, চলরাশি, date of Easter
সম্পর্কিতPassover, of which it is regarded the Christian equivalent; Septuagesima, Sexagesima, Quinquagesima, Shrove Tuesday, Ash Wednesday, Clean Monday, Lent, Great Lent, Palm Sunday, Holy Week, Maundy Thursday, Good Friday, and Holy Saturday which lead up to Easter; and Thomas Sunday, Ascension, Pentecost, Trinity Sunday, and Corpus Christi which follow it.

তথ্যসূত্র

  1. Norman Davies (২০ জানু ১৯৯৮)। "Europe: A History"। HarperCollins। In most European languages Easter is called by some variant of the late Latin word Pascha, which in turn derives from the Hebrew pesach, passover'.
  2. Bernard Trawicky, Ruth Wilhelme Gregory (২০০০)। "Anniversaries and Holidays"। American Library Association। Easter is the central celebration of the Christian liturgical year. It is the oldest and most important Christian feast, celebrating the Resurrection of Jesus Christ. The date of Easter determines the dates of all movable feats except those of Advent.
  3. Aveni, Anthony (২০০৪)। "The Easter/Passover Season: Connecting Time's Broken Circle", The Book of the Year: A Brief History of Our Seasonal HolidaysOxford University Press। পৃষ্ঠা 64–78। আইএসবিএন 0195171543।
  4. Peter C. Bower। "The Companion to the Book of Common Worship"। Geneva Press। সংগ্রহের তারিখ ১১ এপ্রিল ২০০৯Maundy Thursday (or le mandé; Thursday of the Mandatum, Latin, commandment). The name is taken from the first few words sung at the ceremony of the washing of the feet, "I give you a new commandment" (John 13:34); also from the commandment of Christ that we should imitate His loving humility in the washing of the feet (John 13:14-17). The term mandatum (maundy), therefore, was applied to the rite of foot-washing on this day.
  5. Gail Ramshaw (২০০৪)। "Three Day Feast: Maundy Thursday, Good Friday, and Easter"। Augsburg Books। সংগ্রহের তারিখ ১১ এপ্রিল ২০০৯In the liturgies of the Three Days, the service for Maundy Thursday includes both, telling the story of Jesus' last supper and enacting the footwashing.
  6. Leonard Stuart (১৯০৯)। "New century reference library of the world's most important knowledge: complete, thorough, practical, Volume 3"। Syndicate Pub. Co.। সংগ্রহের তারিখ ১১ এপ্রিল ২০০৯Holy Week, or Passion Week, the week which immediately precedes Easter, and is devoted especially to commemorate the passion of our Lord. The Days more especially solemnized during it are Spy Wednesday, Maundy Thursday, Good Friday, and Holy Saturday.

বহিঃসংযোগ

লিটার্জিকাল

ঐতিহ্য
স্বার্থচিন্তাপর
অস্ট্রোনেশীয় ভাষাসমূহ

অস্ট্রোনেশীয় ভাষাসমূহ (ইংরেজি: Austronesian languages) একটি বিরাট ভৌগোলিক এলাকা জুড়ে বিস্তৃত। এরা মাদাগাস্কার থেকে ইস্টার দ্বীপ পর্যন্ত এবং তাইওয়ান ও হাওয়াই থেকে নিউজিল্যান্ড পর্যন্ত ছড়িয়ে আছে। ভাষার সংখ্যা এবং ভৌগোলিক বিস্তার উভয় দিক থেকেই এটি বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ ভাষাপরিবার। এই পরিবারে ১২৪৪টি ভাষা আছে।

মাদাগাস্কার, মালয় উপদ্বীপ, ইন্দোনেশিয়া, নিউ গিনি, ফিলিপাইন, তাইওয়ান, মেলানেশিয়া, মাইক্রোনেশিয়া, পলিনেশিয়া ও নিউজিল্যান্ডের প্রায় ৩০ কোটি লোক বিভিন্ন অস্ট্রোনেশীয় ভাষাতে কথা বলেন। বর্তমানে এদের মধ্যে চারটি ভাষা চারটি দেশে সরকারী মর্যাদা লাভ করেছে। এগুলি হল

মালাগাসি ভাষা; মাদাগাস্কারে প্রচলিত।

মালয় ভাষা; মালয়েশিয়াতে প্রচলিত।

ইন্দোনেশীয় ভাষা; ইন্দোনেশিয়াতে প্রচলিত মালয়-ভিত্তিক ভাষা।

পিলিপিনো ভাষা; ফিলিপাইনে প্রচলিত তাগালোগ-ভিত্তিক ভাষা।অস্ট্রোনেশীয় ভাষাগুলি নিয়ে বিগত দশকগুলিতে ব্যাপক গবেষণা করা হলেও এদের উৎস ও প্রাচীন ইতিহাস সম্পর্কে খুব বেশি কিছু জানা যায়নি। এদের শ্রেণীকরণ সম্পর্কিত বিভিন্ন তত্ত্ব থাকলেও কোনটিই সুপ্রতিষ্ঠিত নয়। ভাষাবিজ্ঞানীরা মনে করেন এগুলি কোন একটি আদি ভাষা থেকে ৪০০০ বছর বা তারও আগে পৃথক হওয়া শুরু করে।

ধারণা করা হয় আদি অস্ট্রোনেশীয় ভাষাটির বক্তারা মালয় উপদ্বীপের কাছে বাস করত এবং সেখান থেকে তারা পশ্চিমে মাদাগাস্কার পর্যন্ত এবং পূর্বে প্রশান্ত মহাসাগরে ছড়িয়ে পড়ে। এই বিস্তরণ সম্ভবত দুই হাজার বছরেরও আগে সংঘটিত হয়েছল। একে অপরের থেকে বহু দূরে অবস্থিত হাজার হাজার দ্বীপে বসবাসের ফলে আদি ভাষাটি থেকে অনেকগুলি উপভাষার উৎপত্তি ঘটে যেগুলি পরে একেকটি স্বতন্ত্র ভাষাতে রূপ নেয়।

অস্ট্রোনেশীয় ভাষাগুলিকে দুইটি শাখায় ভাগ করা হয়--- মালয়-পলিনেশীয় এবং ফরমোসীয়। এদের মধ্যে মালয়-পলিনেশীয় শাখাতি বৃহত্তর। মালয়-পলিনেশীয় শাখাটিকে আবার দুইটি উপশাখায় ভাগ করা যায়। এগুলি হল

পশ্চিম উপশাখা; এতে প্রায় ৫০০টি ভাষা আছে যেগুলি মাদাগাস্কার, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, তাইওয়ানের কিয়দংশ, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম এবং ক্যাম্বোডিয়াতে প্রচলিত। এছাড়া মাইক্রোনেশিয়ার দুইটি ভাষা চামোররো ও পালাউয়ান ভাষাও এই দলের অন্তর্গত। এই উপশাখাতে ৩০ কোটিরও বেশি লোক কথা বলেন। জাভানীয় ভাষা, মালয় ভাষা এবং তাগালোগ ভাষা তিনটি প্রধানতম ভাষা,

কেন্দ্রীয়-পূর্বী উপশাখা। ওশেনীয় ভাষা নামেও পরিচিত। এই শাখায় প্রায় ৫০০টি ভাষা অন্তর্গত। এগুলির বেশির ভাগই নিউ গিনি দ্বীপে প্রচলিত। বাকিগুলি মেলানেশিয়া, মাইক্রোনেশিয়া ও পলিনেশিয়ার প্রায় ১০ হাজার দ্বীপে প্রচলিত। ভৌগলিকভাবে বিস্তৃত হলেও এই উপশাখার ভাষাগুলিতে মাত্র ২০ লক্ষ লোক কথা বলেন। অস্ট্রেলিয়ার আদিবাসী ভাষাগুলি এবং নিউ গিনির পাপুয়ান ভাষাগুলিকে এই উপশাখার অন্তর্গত ধরা হয় না।বহু অস্ট্রোনেশীয় ভাষা আজ বিপন্ন। বিশেষ করে মেলানেশিয়ার ভাষাগুলিতে গড়ে ১৫০০-র বেশি বক্তা নেই।

আউরেলিয়ুস আউগুস্তিনুস

আউরেলিয়ুস আউগুস্তিনুস বা সেইন্ট অগাস্টিন (ইংরেজি: Augustine of Hippo, লাতিন: Aurelius Augustinus Hipponensis; জন্ম: ১৩ই নভেম্বর, ৩৫৪ - মৃত্যু: ২৮শে আগস্ট, ৪৩০) প্রাচীন যুগের খ্রিস্টান ধর্মতত্ত্ববিদ, গীর্জা পদ্ধতির লাতিন জনকদের একজন এবং সম্ভবত স্বয়ং যীশুর কথিত শিষ্য সাধু পল'র পরেই খ্রিস্ট ধর্মের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চিন্তাবিদ ও দার্শনিক। ইংরেজভাষীদের কাছে তিনি সেইন্ট অগাস্টিন নামে পরিচিত, বাংলায় তাকে সাধু অগাস্টিনও বলা হয়। তিনি রোমান অধ্যুষিত উত্তর আফ্রিকাতে বড় হয়েছেন এবং তথাকার হিপ্পো রেগিয়ুস (বর্তমানে আলজেরিয়ার আন্নাবা শহর) নামক নগরীর বিশপ ছিলেন। তার রচিত বইয়ের সংখ্যা অনেক যার মধ্যে সবচেয়ে বিখ্যাত Confessions এবং City of God যে বই দুটো বাইবেলের ভাষ্য হিসেবে সবচেয়ে প্রসিদ্ধ এবং মধ্যযুগীয় ও এমনকি আধুনিক খ্রিস্টীয় চিন্তাধারারও ভিত্তি রচনা করেছিল।

উপনিবেশ

উপনিবেশ (ইংরেজি: Colony) একটি স্থান বা এলাকা যা অন্য কোন দেশ কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত হয়। প্রধান নগর হিসেবে দেশটি উপনিবেশের বৈধ দখলদার। একটি দেশের যখন অনেকগুলো উপনিবেশ থাকে তখন মূল দেশটি সাম্রাজ্য হিসেবে পরিচিত হয়। বিশ্বের প্রাচীনতম উপনিবেশ পুয়ের্তো রিকো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হচ্ছে।উপনিবেশে অবশ্যই অনেক লোকসংখ্যা থাকতে হবে। বিশ্বে একসময় অনেক উপনিবেশ ছিল যা বর্তমানে স্বাধীন দেশে রূপান্তরিত হয়েছে। অধিকাংশ দেশই ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের অধীনে নিয়ন্ত্রিত ছিল। বর্তমানে এ সকল দেশই কমনওয়েলথভূক্ত দেশের সদস্য।

উপনিবেশ বা কলোনী শব্দটি ল্যাটিন শব্দ কলোনিয়া থেকে উদ্ভূত। প্রাচীন গ্রিসে উপনিবেশের নিয়ন্ত্রককে মেট্রোপোলিশ বা প্রধান নগর বলা হতো। একটি উপনিবেশকে প্রায়শঃই নির্দিষ্ট কোন না কোন দেশ কর্তৃক শাসন করা হতো কিংবা উপনিবেশটি নিজেই স্বাধীনভাবে পরিচালিত হতো। পুতুল রাজ্য বা নিয়ন্ত্রিত রাজ্যরূপে উপনিবেশের আন্তর্জাতিক প্রতিনিধিত্ব করার কোন স্বাধীন স্বত্ত্বা বা অধিকার নেই। এর শীর্ষ পর্যায়ের প্রশাসন ব্যবস্থা প্রধান নগর বা রাজধানী থেকে সরাসরি নিয়ন্ত্রণ করা হয়ে থাকে।

কোস্টারিকা জাতীয় ক্রিকেট দল

কোস্টারিকা ক্রিকেট দল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোস্টারিকার প্রতিনিধিত্ব করে। তারা ২০০২ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল-এর অনুমোদিত সদস্য হয়। তারা ২০০৬ সালে বেলিজে অনুষ্ঠিত প্রথম মধ্য আমেরিকান চ্যাম্পিয়নশিপে তাদের আন্তর্জাতিক অভিষেক ঘটায়।

চিলির ভাষা

স্পেনীয় ভাষা চিলির সরকারি ভাষা। এছাড়াও প্রায় ৪ লক্ষ লোক মাপুদুঙ্গুন ভাষাতে কথা বলেন। ইস্টার দ্বীপে রাপানুই ভাষা নামের একটি অস্ট্রোনেশীয় ভাষা প্রচলিত। আন্তর্জাতিক কাজকর্মে স্পেনীয় ভাষার পাশাপাশি ইংরেজি ভাষার প্রচলন বেড়েছে।

দক্ষিণ আমেরিকা

দক্ষিণ আমেরিকা পৃথিবীর চতুর্থ বৃহত্তম মহাদেশ। মহাদেশটির আয়তন ১,৭৮,২০,৯০০ বর্গকিলোমিটার, যা পৃথিবীর মোট স্থলভাগের ১২%। আয়তনের দিকে থেকে এশিয়া, আফ্রিকা ও উত্তর আমেরিকার পরেই এর স্থান। বিষুবরেখা ও মকরক্রান্তির দুই পাশ জুড়ে এর বিস্তৃতি। মহাদেশটি উত্তরে পানামা স্থলযোটকের মাধ্যমে মধ্য ও উত্তর আমেরিকার সাথে যুক্ত। উত্তরে ক্যারিবীয় সাগর থেকে দক্ষিণে হর্ন অন্তরীপ পর্যন্ত মহাদেশটির দৈর্ঘ্য ৭,৪০০ কিলোমিটার। আর পূর্ব-পশ্চিমে এর সর্বোচ্চ দৈর্ঘ্য, আটলান্টিক মহাসাগরের উপকূলে অবস্থিত ব্রাজিলের পুন্তা দু সেইক্সাস থেকে প্রশান্ত মহাসাগরীয় উপকূলে অবস্থিত পেরুর পুন্তা পারিনিয়াস পর্যন্ত, ৫,১৬০ কিলোমিটার।

২০০৬ সালে দক্ষিণ আমেরিকার প্রাক্কলিত জনসংখ্যা ছিল ৩৭ কোটি ৬০ লক্ষ, যা পৃথিবীর মোট জনসংখ্যার ৬%। এই মহাদেশে ১২টি রাষ্ট্র আছে। এদের মধ্যে ১০টি রাষ্ট্র লাতিন: আর্জেন্টিনা, বলিভিয়া, ব্রাজিল, চিলি, কলম্বিয়া, ইকুয়েডর, প্যারাগুয়ে, পেরু, উরুগুয়ে, এবং ভেনেজুয়েলা। দুইটি রাষ্ট্র লাতিন নয়। এই দুটি রাষ্ট্রের মধ্যে গায়ানা যুক্তরাজ্যের এবং সুরিনাম নেদারল্যান্ডসের প্রাক্তন উপনিবেশ ছিল। ব্রাজিল ছিল পর্তুগালের উপনিবেশ। আর্জেন্টিনা, বলিভিয়া, চিলি, কলম্বিয়া, ইকুয়েডর, প্যারাগুয়ে, পেরু, উরুগুয়ে, এবং ভেনেজুয়েলা এই ৯ টি দেশ ছিল স্পেনের উপনিবেশ। এসব দেশের ভাষাও স্পেনিস। ব্রাজিলের ভাষা পর্তুগিজ, সুরিনামের ভাষা ডাচ এবং গায়ানার ভাষা হচ্ছে ইংরেজি। এছাড়া দক্ষিণ আমেরিকাতে ফ্রেঞ্চ গায়ানা বা গুইয়ান নামে ফ্রান্সের একটি জেলা সমমর্যাদার দেপার্ত্যমঁ রয়েছে। এটি এক সময় ফ্রাঞ্চের উপনিবেশ ছিল। মহাদেশটি থেকে বিরাট দূরত্বে প্রশান্ত মহাসাগরে অবস্থিত অনেকগুলি প্রশাসনিক অঞ্চল আছে, যেগুলি দক্ষিণ আমেরিকান বিভিন্ন রাষ্ট্রের অংশ। এদের মধ্যে আছে চিলির হুয়ান ফের্নান্দেস দ্বীপপুঞ্জ ও ইস্টার দ্বীপ, এবং ইকুয়েডরের গালাপাগোস দ্বীপপুঞ্জ। উপকূলের কাছে অবস্থিত মহাসাগরীয় অঞ্চলগুলির মধ্যে আছে আটলান্টিক মহাসাগরে অবস্থিত ব্রাজিলের ফের্নান্দু দি নোরোনিয়া দ্বীপপুঞ্জ। দক্ষিণে আছে যুক্তরাজ্যের ফকল্যাণ্ড দ্বীপপুঞ্জ। এই দ্বীপপুঞ্জটিকে আর্জেন্টিনা ইসলাস মালবিনাস নামে ডাকে এবং এগুলিকে নিজেদের বলে দাবী করে। দক্ষিণ আমেরিকার তটরেখা তুলনামূলকভাবে নিয়মিত প্রকৃতির, তবে একেবারে দক্ষিণে ও দক্ষিণ-পশ্চিমে অনেক ফিয়ডের্র উপস্থিতির কারণে তটরেখা অত্যন্ত ভগ্ন।

পুণ্য শুক্রবার

পুণ্য শুক্রবার (গুড ফ্রাইডে নামেও পরিচিত) মূলত খ্রিষ্টানদের দ্বারা পালিত একটি ধর্মীয় ছুটির দিন। এই উৎসবের অপর নাম "পবিত্র শুক্রবার", "কালো শুক্রবার", "মহান শুক্রবার"। গলগথায় যিশু খ্রিষ্টের ক্রুসবিদ্ধকরণ, মৃত্যু ও সমাধিমন্দির থেকে তার পুনরুজ্জীবনের স্মরণে এই উৎসবটি পালিত হয়। পবিত্র সপ্তাহে ইস্টার রবিবারের পূর্ববর্তী শুক্রবারে প্যাস্কাল ট্রিডামের অংশ হিসেবে এই উৎসব পালিত হয়। প্রায়শই পুণ্য শুক্রবার ইহুদিদের উৎসব পাসওভারের সঙ্গে একই দিনে উদযাপিত হয়ে থাকে।

যিশুর বিচারের শাস্ত্রীয় বিবরণীগুলি থেকে অনুমিত হয় যে তাকে সম্ভবত শুক্রবারে ক্রুসবিদ্ধ করা হয়েছিল। দুটি ভিন্ন গোষ্ঠীর মতে পুণ্য শুক্রবারর বছরটি হল ৩৩ খ্রিষ্টাব্দ। আইজ্যাক নিউটন বাইবেলীয় ও জুলিয়ান ক্যালেন্ডার এবং অমাবস্যার তিথি বিচার করে পুণ্য শুক্রবারর যে প্রকৃত সালটি নিরুপণ করেছেন, সেটি হল ৩৪ খ্রিষ্টাব্দ। ক্রুসিফিকেশন ডার্কনেস অ্যান্ড একলিপস পদ্ধতি (প্রেরিতদের কার্য; ২:২০-এ প্রেরিত পিতর কর্তৃক বর্ণিত "রক্ত চন্দ্র"-এর উল্লেখ অনুসারে) নামে একটি তৃতীয় পদ্ধতিতে হিসেব করে পুণ্য শুক্রবারর তারিখ নিরুপণ করা হয়েছে ৩ এপ্রিল, ৩৩ খ্রিষ্টাব্দ।

পেপ গার্দিওলা

ইয়োসেপ ‘‘পেপ’’ গার্দিওলা ই সালা (জন্ম ১৮ জানুয়ারি ১৯৭১) একজন স্পেনীয় ফুটবল ম্যানেজার এবং প্রাক্তন খেলোয়াড়। বর্তমানে তিনি ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটির ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। খেলোয়াড় হিসেবে গার্দিওলা একজন ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার ছিলেন এবং ক্যারিয়ারের অধিকাংশ সময় তিনি বার্সেলোনায় কাটিয়েছেন। তিনি ইয়োহান ক্রুয়েফের ‘‘ড্রিম টিমেরও’’ অংশ ছিলেন যা বার্সেলোনার হয়ে প্রথম ইউরোপিয়ান কাপ জেতে। তিনি ইতালির ক্লাব ব্রেস্কিয়া ও রোমা, কাতারের ক্লাব আল-আহলি এবং মেক্সিকোর ক্লাব দোরাদোসেও খেলেছেন। ইতালিতে খেলার সময় ড্রাগ টেস্টে পজিটিভ হওয়ার কারনে তাকে চার মাসের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়। আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে তিনি স্পেন জাতীয় দলে খেলছিলেন এবং কাতালুনিয়া জাতীয় দলের হয়ে কিছু প্রীতি খেলায় অংশগ্রহণ করেছিলেন।

খেলোয়াড় হিসেবে অবসর গ্রহণের পর তিনি বার্সেলোনা বি দলের কোচের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ২০০৮ সালের ৮ মে, বার্সেলোনা প্রেসিডেন্ট জোয়ান লাপোর্তা ফ্রাংক রাইকার্ডের উত্তরসূরি হিসেবে গার্দিওলার নাম ঘোষণা করেন। এতে করে, তিনি বার্সেলোনার মূল দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পেয়ে যান। ২০০৮ সালের ৫ জুন, তিনি চুক্তি সাক্ষর করেন। ম্যানেজার হিসেবে তার প্রথম মৌসুমে (২০০৮–০৯) বার্সা ট্রেবল জয় করে। তারা কোপা দেল রে, লা লিগা এবং চ্যাম্পিয়ন্স লীগ শিরোপা জেতে। এতে করে, চ্যম্পিয়ন্স লীগ ইতিহাসে কনিষ্ঠতম ম্যানেজার হিসেবে এই শিরোপা জেতার কৃতিত্ব গড়েন গার্দিওলা। পরের মৌসুমে গার্দিওলা এবং বার্সেলোনা স্পেনীয় সুপার কোপা, ইউরোপীয়ান সুপার কাপ এবং ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ জেতে। এতে করে, এক পঞ্জিকাবর্ষে সাম্ভব্য ছয়টি শিরোপার সবগুলোই জেতে বার্সা ও গার্দিওলা।

২০১১ সালের ৮ সেপ্টেম্বর, গার্দিওলাকে কাতালান আইনসভার সর্বোচ্চ সম্মাননা স্বর্ণপদক পুরস্কার দেওয়া হয়। ২০১২ সালের ৯ জানুয়ারি, গার্দিওলাকে ২০১১ ফিফা বর্ষসেরা কোচের পুরস্কার দেওয়া হয়। প্রতিযোগীতায় তিনি ৪২% ভোট পান। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কোচ অ্যালেক্স ফার্গুসন পান ১৬% এবং রিয়াল মাদ্রিদের কোচ জোসে মরিনহো পান ১২% ভোট। ২০১২ সালের ৩০ জুন, গার্দিওলাবার্সেলোনার কোচের পদ থেকে অব্যাহতি নেন। তিনি চার বছর বার্সেলোনায় কাটিয়ে দলকে ১৪টি শিরোপা উপহার দেন। ২০১৩ সালের ১৬ জানুয়ারি, বায়ার্ন মিউনিখ কর্তৃপক্ষ ঘোষণা করে যে ২০১৩–১৪ মৌসুমে গার্দিওলা ক্লাবের দায়িত্ব গ্রহণ করবেন।

ফরাসি পলিনেশিয়া

ফরাসি পলিনেশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরের একাধিক দ্বীপের সমন্বয়ে গঠিত একটি দ্বীপ রাষ্ট্র। এটি ওশেনিয়া অঞ্চলে অবস্থিত। সামোয়া, টোঙ্গা, ট্যুভ্যালু, কুক,ইস্টার, নিও, হাওয়াই উল্লেখযোগ্যে দ্বীপ।

বার্লিন অবরোধ

বার্লিন অবরোধ(২৪ জুন ১৯৪৮ - ১২ মে ১৯৪৯) ছিল স্নায়ু যুদ্ধের প্রথম বড় আন্তর্জাতিক সংকট। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর জার্মানির বহুজাতিক দখলের সময়ে সোভিয়েত ইউনিয়ন পশ্চিমা নিয়ন্ত্রাণাধীন বার্লিনে পশ্চিমাদের প্রবেশের রেল, সড়ক এবং খালের চলাচল পথ বন্ধ করে দেয়। পশ্চিম বার্লিন থেকে পশ্চিমাদের নতুন প্রবর্তিত ডয়েচ মার্ক প্রত্যাহার করলে সোভিয়েত অবরোধ তুলে নেয়ার প্রস্তাব দেয়।

পশ্চিমা মিত্রশক্তি পশ্চিম বার্লিনের জনগণের কাছে দ্রব্য সরবরাহ করার জন্য বার্লিন এয়ারলিফটের (২৬ জুন ১৯৪৮-৩০ সেপ্টেম্বর ১৯৪৯) ব্যবস্থা করেছিল, এটি ছিল শহরের জনসংখ্যার তুলনায় অনেক কঠিন একটা কাজ। একবছরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনী, রয়্যাল এয়ার ফোর্স, ফ্রেঞ্চ এয়ার ফোর্স, রয়্যাল কানাডিয়ান এয়ার ফোর্স, রয়্যাল অস্ট্রেলিয়ান এয়ার ফোর্স, রয়্যাল নিউজিল্যান্ড এয়ার ফোর্স এবং দক্ষিণ আফ্রিকার এয়ার ফোর্স থেকে নেয়া বিমান চালকগণ ২০০,০০০ বার দ্রব্য সরবরাহ করেছিল, যেখানে পশ্চিমা বার্লিন অধিবাসীদের জন্য প্রতিদিনে প্রায় ১২,৯৪১ টন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য, যেমন জ্বালানী এবং খাদ্য সরবরাহ করা হতো। যাই হোক, এয়ারলিফটের শেষে এই সংখ্যা দ্বিগুণ হয়ে দাঁড়ায়। সোভিয়েতরা জার্মানির এবং বিশেষত বার্লিনের মিত্রদের চেয়ে সংখ্যায় বেশি থাকা সত্ত্বেও সোভিয়েত এই এয়ারলিফটকে বাঁধা দেয় নি কারণ সেটি প্রকাশ্য যুদ্ধের দিকে নিয়ে যেতে পারত।

রয়্যাল এয়ার ফোর্স সর্বপ্রথম ত্রাণ সহায়তায় এগিয়ে আসে বার্লিনে নিযুক্ত ব্রিটিশ মিলিটারিদের সাহায্যের জন্য। এরপর যুক্তরাজ্য-যুক্তরাষ্ট্র যৌথ অপারেশন শুরু করে গোটা শহরের সাহায্যের জন্য। ১৯৪৯ সালের বসন্তের সময় এই এয়ারলিফট স্পষ্টতই সফল ছিল এবং এপ্রিলের দিকে এটি রেলপথের চেয়েও অধিক পরিমাণ পণ্য সরবরাহ করেছিল। ১২ মে ১৯৪৯ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন পশ্চিম বার্লিন থেকে অবরোধ তুলে নেয়, যদিও যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং ফ্রান্স আরও কিছুদিন তাদের এয়ারলিফটের মাধ্যমে সহায়তা অব্যাহত রেখেছিল। কারণ তারা ভেবেছিল সোভিয়েত সহজেই অবরোধ পুনরারম্ভ করতে পারে এবং এটি শুধু পশ্চিমা সরবরাহ বিঘ্নিত করার চেষ্টা মাত্র।

বেলিজ জাতীয় ক্রিকেট দল

বেলিজিয়ো জাতীয় ক্রিকেট দল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট-এ বেলিজ-এর প্রতিনিধিত্ব করে। ১৯৯৭ সাল থেকে বেলিজ আইসিসি এর অনুমোদিত সদস্য। কিন্তু তা সত্ত্বেও তারা ২০০৪ সালের পূর্বে কোন ম্যাচ খেলে নি। ২০০৪ সালে তারা আইসিসি আমেরিকাস চ্যাম্পিয়নশিপ-এর বাছাই-পর্বে অংশ নেয়। বর্তমানে তারা আইসিসি আমেরিকাস চ্যাম্পিয়নশিপ-এর তৃতীয় বিভাগে খেলে।

মাকেমাকে

মাকেমাকে (ইংরেজি: Makemake, গৌণ গ্রহ তালিকাভুক্ত নাম ১৩৬৪৭২ মাকেমাকে ) একটি বামন গ্রহ যা কাইপার বেষ্টনীর চিরায়ত সদস্য (classical Kuiper belt object) গুলোর মাঝে সম্ভাব্য বৃহত্তম বলে গণ্য করা হয়। এর ব্যাস প্লুটো গ্রহের প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ। এযাবৎ কাইপার বেষ্টনীর বৃহৎ বস্তুগুলোর মাঝে একমাত্র মাকেমাকেরই কোন নিজস্ব উপগ্রহ পাওয়া সম্ভব হয় নি, যার কারনে এর ভর শুধুমাত্রই অনুমান করা হয়। এর অত্যন্ত কম গড় তাপমাত্রা, প্রায় ৩০ K (−২৪৩.২ °সে) হওয়ার কারণে ধারণা করা হয় এর পৃষ্ঠ মিথেন, ইথেন ও সম্ভবত নাইট্রোজেনের বরফ দ্বারা আবৃত।৩১শে মার্চ ২০০৫ সালে মাইকেল ই. ব্রাউনের নেতৃত্বে একটি দল মাকেমাকে আবিষ্কার করে এবং ২৯শে জুলাই ২০০৫ সালে আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষণা করা হয়। প্রাথমিকভাবে এর নাম ছিল ২০০৫ এফওয়াই৯ ও পরবর্তীকালে একে গৌণ গ্রহ সংখ্যা ১৩৬৪৭২ দেয়া হয়। ২০০৮ সালের জুলাই মাসে আন্তর্জাতিক জ্যোতির্বিজ্ঞান সংঘ এই বস্তুকে বামন গ্রহ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। ইস্টার দ্বীপের বাসিন্দা রাপা নুই দের পুরাণের দেবতা মাকেমাকের নাম অনুসারে এই গ্রহের নামকরণ করা হয়।

মোয়াই

মোয়াই হচ্ছে রাপা নুই দ্বীপে (ইংরেজি: Easter Island, স্পেনীয়: Isla de Pascua), সংকুচিত আগ্নেয় শিলায় খোদাইকৃত অনেকগুলো আবক্ষ মূর্তি। প্রত্যেকটি মূর্তি একেকটি আস্ত শিলা হতে খোদাই করা হয়েছে, প্রত্যেকটি মূর্তির ওজন ২০ টন এবং উচ্চতা ২০ ফুট। অবশ্য একটি অসম্পূর্ণ মূর্তি পাওয়া গেছে যার উচ্চতা ৬৯ ফুট ও ওজন ২৭০ টন। এ পর্যন্ত ৮৮৭টি মোয়াই সম্পর্কে জানা গেছে, কিন্তু বর্তমানে ৩৯৪ টি মোয়াই দেখা যায়।

যিশু

যিশু (৪ খ্রিস্টপূর্বাব্দ?-৩০ খ্রিষ্টাব্দ?) ছিলেন একজন ইহুদি ধর্মপ্রচারক, যিনি খ্রিস্টধর্মের কেন্দ্রীয় ব্যক্তিত্ব হিসেবে গণ্য হন। তিনি নাসরতের যিশু নামেও অভিহিত হন। যিশুকে প্রদত্ত উপাধি 'খ্রিস্ট' থেকে খ্রিস্টধর্মের নামকরণ করা হয়েছে। খ্রিস্টানরা বিশ্বাস করেন, যিশু ইশ্বরের পুত্র এবং বাইবেলের পুরাতন নিয়মে পূর্বব্যক্ত মসিহ যার আগমন নতুন নিয়মে পুনর্ব্যক্ত হয়েছে।প্রাচীন ভূমধ্যসাগরীয় সভ্যতাসন্ধিৎসু প্রায় সকল গবেষকই এই ব্যাপারে একমত যে যিশু একজন ঐতিহাসিক ব্যক্তিত্ব ছিলেন। তারা মনে করেন, পর্যবেক্ষণমূলক সুসমাচারগুলি (মথি, মার্ক ও লুক) হল যিশুর ঐতিহাসিক সত্যতা অনুসন্ধানের শ্রেষ্ঠ সূত্র। যিশুকে প্রায়শই "রাব্বি" সম্বোধন করা হয়েছে। তিনি মুখে মুখে তার বাণী প্রচার করতেন। বাপ্তিস্মকর্তা যোহন তাকে বাপ্তিস্ম করেছিলেন এবং রোমান প্রিফেক্ট পন্টিয়াস পাইলেটের আদেশে তাকে ক্রুশবিদ্ধ করা হয়েছিল। আধুনিক যুগে সাধারণভাবে মনে করা হয় যে, যিশু ছিলেন একজন রহস্যোদ্ঘাটনবাদী ধর্মপ্রচারক এবং তিনি ইহুদি ধর্মের মধ্যেই একটি সংস্কার আন্দোলনের সূত্রপাত ঘটিয়েছিলেন। যদিও কয়েকজন বিশিষ্ট গবেষক মনে করেন যে, যিশু আদৌ রহস্যোদ্ঘাটনবাদী ছিলেন না। ঈশ্বরের ইচ্ছা পালনের শ্রেষ্ঠ পদ্ধতি কী, তা নিয়ে যিশু ইহুদি ধর্মীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বিতর্কে অংশ নিতেন, রোগীদের রোগমুক্ত করতেন, নীতিগর্ভ কাহিনির মাধ্যমে শিক্ষা দিতেন এবং শিষ্য সংগ্রহ করতেন। যিশুর অনুগামীরা বিশ্বাস করতেন যে, তিনি মৃত্যুর পর পুনর্জীবন লাভ করেছিলেন এবং তারা যে সমাজ গঠন করেছিলেন তা-ই পরবর্তীকালে খ্রিস্টীয় চার্চে পরিণত হয়। ২৫ ডিসেম্বর তারিখে (বা কয়েকটি ইস্টার্ন চার্চের মতানুসারে জানুয়ারির বিভিন্ন তারিখে) যিশুর জন্মদিন পালিত হয়। এটি একটি ছুটির দিন এবং এটি বড়দিন বা ক্রিসমাস নামে পরিচিত। যিশুর ক্রুশারোহণের তারিখটি গুড ফ্রাইডে এবং পুনর্জীবন লাভের তারিখটি ইস্টার নামে পরিচিত। বহুল ব্যবহৃত পঞ্জিকা যুগ "খ্রিস্টাব্দ" (লাতিন "Anno Domini" বা "আমাদের প্রভুর বছরে" থেকে) যিশুর জন্মতারিখের ভিত্তিতে প্রচলিত।খ্রিস্টানরা বিশ্বাস করেন যে, বিশ্বে যিশুর একটি “স্বতন্ত্র গুরুত্ব” রয়েছে। খ্রিস্টীয় মতবাদের অন্তর্ভুক্ত বিশ্বাসগুলির মধ্যে রয়েছে পবিত্র আত্মার প্রভাবে যিশুর গর্ভে প্রবেশ এবং মেরি নাম্নী এক কুমারীর গর্ভে জন্ম, যিশুর বিভিন্ন অলৌকিক কার্য সম্পাদন, চার্চ প্রতিষ্ঠা, প্রতিকার বিধানার্থে আত্মত্যাগ স্বরূপ ক্রুশারোহণে মৃত্যু, মৃত অবস্থা থেকে পুনর্জীবন লাভ, সশরীরে স্বর্গে আরোহণ, এবং ভবিষ্যতে তার পুনরাগমনে বিশ্বাস। অধিকাংশ খ্রিস্টানই বিশ্বাস করেন, যে যিশু ঈশ্বরের সঙ্গে মানুষের পুনর্মিলন ঘটানোর শক্তি রাখেন। নাইসিন ধর্মমত অনুসারে, যিশু মৃতদের বিচার করবেন। এই বিচারকার্য সম্পাদিত হবে হয় তাদের শারীরিক পুনর্জীবন লাভের আগে অথবা পরে। এই ঘটনাটি খ্রিস্টীয় শেষবিচারবাদে যিশুর দ্বিতীয় আগমনের সঙ্গে যুক্ত। যদিও কেউ কেউ বিশ্বাস করেন যে, ত্রাণকর্তা রূপে যিশুর ভূমিকা মৃত্যুপরবর্তী জীবনের তুলনায় অনেকাংশেই জীবনবাদমূলক বা সমাজমূলক। অল্প কয়েকজন উল্লেখযোগ্য ধর্মতত্ত্ববিদ বলেছেন যে, যিশু একটি বিশ্বজনীন পুনর্মিলন ঘটাবেন। খ্রিস্টানদের অধিকাংশই যিশুকে ত্রয়ীর তিন জন ব্যক্তির দ্বিতীয় ব্যক্তিত্ব ঈশ্বরপুত্রের অবতার রূপে পূজা করেন। খ্রিস্টানদের একটি সংখ্যালঘু অংশ সম্পূর্ণত বা অংশত ত্রয়ীবাদকে অশাস্ত্রীয় বলে প্রত্যাখ্যান করে।

ইসলাম ধর্মে যিশুকে (ইসলামে তিনি ঈসা নামে পরিচিত) ঈশ্বরের তথা আল্লাহর গুরুত্বপূর্ণ একজন নবী ও মসিহ বলে মনে করা হয়। মুসলমানেরা বিশ্বাস করেন যে, যিশু ছিলেন শাস্ত্র আনয়নকারী নবী তথা রাসূল। তিনি কুমারীগর্ভে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তবে তারা যিশুকে ঈশ্বরপুত্র মনে করেন না। কুরআন অনুসারে, যিশু নিজে কোনওদিন নিজের ঈশ্বরত্ব দাবি করেননি। অধিকাংশ মুসলমানের মতে, যিশু ক্রুশবিদ্ধ হননি। ঈশ্বর তাকে সশরীরে স্বর্গে তুলে নিয়েছিলেন। ইহুদি ধর্ম বিশ্বাস করে না যে, যিশুই সেই মসিহ যাঁর সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছিল। ইহুদিদের মতে, ক্রুশে যিশুর মৃত্যুই প্রমাণ করে যে ঈশ্বর তাকে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। তারা যিশুর পুনর্জীবন লাভের ঘটনাটিকে একটি খ্রিস্টীয় কিংবদন্তি মনে করেন।

রোঙ্গোরোঙ্গো

রোঙ্গোরোঙ্গো (ইংরেজি: Rongorongo; ; রাপা নুই: [ˈɾoŋoˈɾoŋo]) হল ইস্টার দ্বীপে ১৯শ শতকে আবিষ্কৃত গ্লিফের একটি পদ্ধতি যা লিখিত বা প্রোটো-লিখিত হবে প্রতীয়মান হয়। এটি অনেক অর্থোদ্ধারযোগ্যের প্রচেষ্টা সত্ত্বেও পড়া যায় নি। যদি রোঙ্গোরোঙ্গো লেখা প্রমাণ হয়, তাহলে এটা হবে মানব ইতিহাসের তিন বা চারটি স্বাধীন উদ্ভাবন লেখার একটি।

২০১৪

২০১৪ (MMXIV) বর্তমান বছর ও একটি সাধারণ বছর যেটি বুধবার দিয়ে শুরু। গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জী অনুযায়ী, এটি কমন এরা এবং অ্যানো ডোমিনির ২০১৪তম বছর; ৩য় সহস্রাব্দের ১৪তম বছর এবং ২১শ শতাব্দী; এবং ২০১০ দশক এর ৫ম বছর।

জাতিসংঘ ২০১৪ সালকে ফিলিস্তিনি জনগণের সঙ্গে সংহতি, ক্ষুদ্র দ্বীপের উন্নয়নশীল দেশ, স্ফটিকবিদ্যা ও পারিবারিক খামার বিষয়ক আন্তর্জাতিক বর্ষ হিসেবে চিহ্নিত করেছে।

এই নিবন্ধ সম্পর্কিত সংযোগ

অন্যান্য ভাষাসমূহ

This page is based on a Wikipedia article written by authors (here).
Text is available under the CC BY-SA 3.0 license; additional terms may apply.
Images, videos and audio are available under their respective licenses.